শতাধিক সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও বৃদ্ধদের নিয়ে বৈশাখী উৎসব পালন

শতাধিক সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও বৃদ্ধদের নিয়ে বৈশাখী উৎসব পালন

শতাধিক সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও বৃদ্ধদের নিয়ে বৈশাখী উৎসব পালন

📅15 April 2019, 22:20

স্বদেশসময় ডটকমঃ
নববর্ষকে বরণ করে নিতে স্বদেশমৃত্তিকা ফাউন্ডেশন ও স্টুডেন্ট’স এডুকেশনাল এসোসিয়েশন সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও বৃদ্ধদের নিয়ে আয়োজন করেছে নববর্ষ উদযাপনের অনুষ্ঠান ‘এসো হে বৈশাখ’।

স্বদেশমৃত্তিকা ফাউন্ডেশন শতাধিক পথশিশুদের শিক্ষার দায়িত্ব নিয়ে কাজ করে চলছে গত কয়েক বছর। সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সুযোগ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে নানা রকম কর্মসূচি রয়েছে এই ফাউন্ডেশনটি। ক্লাসের সময় এস ই এল চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় নাস্তার পাশাপাশি বছরের বিশেষ বিশেষ দিনে বিশেষ অনুষ্ঠান করে ঐ দিনের মাহাত্ম তুলে ধরা হয়। একই সাথে ঐ দিনে তাদের জন্য ভাল খাবারের ব্যবস্থা করা হয়।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) সকালে আগারগাও এলাকায় সমাজের সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও বৃদ্ধদের নিয়ে বর্ষবরণের আনন্দ দিতেই এ আয়োজন করে সংগঠন দু’টি।
অনুষ্ঠানে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য বিভিন্ন বিনোদন ও বৈশাখী খাবারে ২২ রকম ভর্তাসহ ইলিশ মাছ দিয়ে আয়োজন করে সংগঠনটি। এসময় তারা বিভিন্ন দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করে। অনুষ্ঠানের পরবর্তী অংশে অতিথিবৃন্দ সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সাথে বৈশাখী আড্ডায় মেতে ওঠেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের সিনিয়র সহকারী সচিব ও নবীন কথাসাহিত্যিক মনদীপ ঘরাই,অর্থ-মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব রেহমান সিদ্দিকী, উপদেষ্টা স্বদেশমৃত্তিকা ফাউন্ডেশন ও এন ডি এফ এর চেয়ারম্যান ইবনুল সাঈদ রানা, ডাঃ এস এম হাবিবুর রহমান আল মাইজ ভান্ডারী, উপদেষ্টা স্বদেশমৃত্তিকা ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ বেতারের উপ-আঞ্চলিক পরিচালক সাঈদুজ্জামান সাঈদ,বাংলাদেশ বেতারের সহকারি-আঞ্চলিক মোঃ দুলাল হোসাইন,বাংলাদেশ বেতারের জনপ্রিয় উপস্থাপক সজিব দত্ত, হুমায়ুন কবির, শাহবাল আহমেদ জনি,বংগবন্ধু স্মৃতি পাঠাগারের সভাপতি আজমল মাস্টার,আওয়ামীলীগ নেতা,আব্দুল হালিম, মাস্টার মতিউর রহমান, ব্যাবসায়ী আব্দুল কুদ্দুস ও লায়ন আজম খান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, বাংলাদেশ কৃষকলীগ।

স্বাগত ভাষণ দেন স্টুডেন্ট’স এডুকেশনাল এসোসিয়েশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি গোলাম রহমান।
ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন স্বদেশমৃত্তিকা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মোঃ আকবর হোসেন।
অনষ্ঠান পরিচালনা ও সার্বিক তত্বাবধানে পৌষী জামান।
তারা একসঙ্গে দুপুরের খাবার খাচ্ছে। স্বদেশ মৃত্তিকা ফাউন্ডেশনের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে নানান পেশার মানুষও যোগ দিয়েছে।

বাংলাদেশ সরকারের সিনিয়র সহকারী সচিব ও নবীন কথাসাহিত্যিক মনদীপ ঘরাই এদিন পথশিশুদের মাঝে মিশে যান, ওদের সঙ্গে সময় কাটান। সেই সঙ্গে নববর্ষে সরকারি ভাতার পুরোটাই তুলে দিয়েছেন ওদের হাতে। এ বিষয়ে মনদীপ ঘরাই বলেন, অর্থটা সামান্য জানি, প্রয়াসটা মন থেকে। নববর্ষ ভাতা তো দেয়া হয় উৎসব উদযাপনের জন্য। এরচেয়ে ভালোভাবে উদযাপন কি আর সম্ভব? ওদের মুখে হাসি ফোটালেই নববর্ষ সত্যিকার অর্থে শুভ হবে।’ আর মনদীপ ঘরাইয়ের লেখা বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেছিল এই স্বদেশ মৃত্তিকা ফাউন্ডেশনের তিনজন পথশিশু। তার বই থেকে প্রাপ্ত লাভের পুরোটাই দেয়া হবে ওদের শিক্ষা সহায়তায়।

এ বিষয়ে স্বদেশ মৃত্তিকা ফাউন্ডেশনের ফাউন্ডার চেয়ারম্যান আকবর হোসেন বলেন, সুবিধা বঞ্চিত এসব ছেলে মেয়েদের নিয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা জানতে চাইলে বলেন, লক্ষ্য হলো, সারা দেশে সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের শিক্ষার আওতায় নিয়ে আসা। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি প্রথমত তাদের মধ্যে মানবিক গুনাবলীর সঞ্চার করা ও দ্বিতীয়ত কারিগরী শিক্ষা দিয়ে কোন না কোন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। আজকের এ আয়োজন সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের কথা চিন্তা করে। আমরা সবসময় ওদের পাশে আছি।

Share this article:

No Comments

No Comments Yet!

You can be first one to write a comment

Leave a comment